রাফালের গর্জনে কাঁপল হিন্দোন দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সর্বদা প্রস্তুত

রাফালের গর্জনে কাঁপল হিন্দোন দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সর্বদা প্রস্তুত

সবেমাত্র ‘অভিষেক’ হয়েছে। আর শুরুতেই তাক লাগাল রাফাল। ৮৮তম বায়ুসেনা দিবসের ফ্লাইপাস্টে গর্জে উঠল এই অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান। বৃহস্পতিবার গাজিয়াবাদের হিন্দোন এয়ারবেসে বায়ুসেনার প্রতিষ্ঠা দিবসের ফ্লাইপাস্টে রাফালের পাশাপাশি অংশ নেয় ৫৬টি যুদ্ধবিমান। তেজস, জাগুয়ার, মিগ-২১, মিগ-২৯ ও সুখোই-৩০ যুদ্ধবিমানের কসরতে চোখ ফেরানো দায়। আকাশের বুক কাঁপাল বায়ুসেনার এমআই১৭ভি৫, চিনুক ও অ্যাপাচের মতো অত্যাধুনিক হেলিকপ্টারগুলিও। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বায়ুসেনা প্রধান রাকেশকুমার সিং ভাদৌরিয়া বললেন, ‘সব পরিস্থিতিতেই দেশের সার্বভৌমত্ব ও স্বার্থ রক্ষায় সর্বদা প্রস্তুত বায়ুসেনা।’
গাজিয়াবাদের বায়ুসেনা ঘাঁটিতে এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত, সেনাপ্রধান এম এম নারাভানে এবং নৌসেনা প্রধান করমবীর সিং। লাদাখে চীনের সঙ্গে সংঘাতের প্রেক্ষিতে এদিনের অনুষ্ঠান থেকে তাঁদের সামনে বায়ুসেনা প্রধানের বার্তা, ‘উত্তর সীমান্তের সাম্প্রতিক সংঘাতে প্রয়োজনের মুহূর্তে দ্রুত ঝাঁপিয়ে পড়ার জন্য বায়ুসেনার সব যোদ্ধাকে কুর্নিশ জানাই। অতি অল্প সময়ের নোটিসে আমরা সর্বশক্তি দিয়ে সেনাবাহিনীর পাশে দাঁড়াতে পেরেছি। কোভিড সংক্রমণের প্রেক্ষিতে চলতি বছরে নজিরবিহীন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। তা সত্ত্বেও আমাদের আকাশযোদ্ধাদের হার না মানা মনের জোরে ভর করে বায়ুসেনা গোটা বছর পূর্ণ সামর্থ নিয়ে কাজ চালিয়ে গিয়েছে।’
এর আগে এদিন প্রতিষ্ঠা দিবসে বায়ুসেনাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ট্যুইট করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দও। তিনি বলেন, ‘রাফাল, চিনুক ও অ্যাপাচের অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে চলতি আধুনিকীকরণের প্রক্রিয়া বায়ুসেনার উত্তরণের পথ তৈরি করবে।’ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ট্যুইটে শুভেচ্ছাবার্তায় বলেন, ‘দেশকে রক্ষা করতে বায়ুসেনার সাহস, বীরত্ব ও দায়বদ্ধতা সবাইকে অনুপ্রাণিত করে। পাশাপাশি সঙ্কটের মুহূর্তে মানবিক প্রয়োজনে বায়ুসেনার কর্মীরা যেভাবে ঝাঁপিয়ে পড়েন, তাকেও কুর্নিশ জানাই।’ ১৯৩২ সালে ৬ জন পাইলট ও ১৯ জন এয়ারম্যান নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল ভারতীয় বায়ুসেনা। সেখান থেকে ভারতীয় বায়ুসেনা আজ একবিংশ শতাব্দীর অন্যতম শক্তিশালী বাহিনী। বায়ুসেনার এই উত্তরণের ইতিহাস নিয়ে একটি সংক্ষিপ্ত ভিডিও পোস্ট করেন প্রধানমন্ত্রী। প্রতিষ্ঠা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে ট্যুইট করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংও। তবে নিশ্চিতভাবেই এদিনের অনুঠানে সেরা আকর্ষণ ছিল রাফাল।