লোকাল ও মেট্রো চালু নিয়ে স্পষ্ট কিছু জানাল না রেল

লোকাল ও মেট্রো চালু নিয়ে স্পষ্ট কিছু জানাল না রেল
লোকাল ও মেট্রো চালু নিয়ে স্পষ্ট কিছু জানাল না রেল

 লোকাল এবং মেট্রো ট্রেন পরিষেবা চালু নিয়ে ধোঁয়াশা অব্যাহতই রয়েছে। শুক্রবার রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান ভি কে যাদব এক প্রশ্নের উত্তরে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, শহর ও শহরতলির লোকাল ট্রেন এবং কলকাতা মেট্রো পরিষেবা চালু করতে চেয়ে এখনও পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গ সরকার রেলমন্ত্রকের কাছে কোনওরকম আবেদন করেনি। দিনকয়েক আগেই লোকাল ও মেট্রো পরিষেবা চালু নিয়ে রাজ্যের কোর্টেই বল ঠেলে রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান জানিয়েছিলেন, এই ব্যাপারে আবেদন করতে হবে সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারকেই।
কলকাতা মেট্রো এবং শহর ও শহরতলির লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু নিয়ে প্রশ্ন থাকলেও বিভিন্ন স্টেশনের মানোন্নয়ন নিয়ে উদ্যোগী হচ্ছে রেল বোর্ড। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা, এনজেপি (নিউ জলপাইগুড়ি), হাওড়া, আলিপুরদুয়ার জংশন এবং শালিমার স্টেশনের পুনরায় মানোন্নয়নের (রি-ডেভেলপমেন্ট) জন্য দরপত্র ডাকার প্রক্রিয়া শুরু করতে চায় রেল। এদিন এই কথা জানিয়ে ভি কে যাদব বলেছেন, এই কর্মসূচির আওতায় প্রতিটি স্টেশনকেই আন্তর্জাতিক মানের করা হবে। ওয়েটিং হল, লাউঞ্জ, সার্কুলেটিং এরিয়া, আরওবির মতো একাধিক বিষয় পড়বে এর আওতায়। এদিন রেল বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পিপিপি (পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ) মডেলেই এই কাজগুলি হবে। দরপত্র আহ্বানের ক্ষেত্রে মূলত জোর দেওয়া হবে এদেশের সংস্থার উপরই। গতকালই ডেডিকেটেড ফ্রেট করিডরের ক্ষেত্রে চীনা সংস্থার সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছে মন্ত্রক। তার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রেল বোর্ডের চেয়ারম্যানের দেশী সংস্থার উপর জোর দেওয়া নিয়ে করা মন্তব্যকে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে। রাজ্যের উল্লিখিত পাঁচ স্টেশনের উন্নয়নের পাশাপাশি বাংলার আসানসোল, হাওড়া, শিয়ালদহ, আলিপুরদুয়ার এবং আদ্রা স্টেশনের ‘আপগ্রেডেশন’ও করছে রেল।